“সফটওয়্যার মুক্তি দিবস – ২০১৯” — বাংলাদেশ আয়োজন

“সফটওয়্যার মুক্তি দিবস – ২০১৯” — বাংলাদেশ আয়োজন

sfd-2019

মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য কম্পিউটার ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত সফটওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে। ১৯৮৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসের কোন একদিনে রিচার্ড স্টলম্যান নামের সফটওয়্যারের যাদুকর এক বদ্ধ উন্মাদ নিজের মোটা মাইনের চাকুরী ছেড়ে দিয়ে শুরু করেছিলেন মানবতার জন্য সফটওয়্যার উন্মুক্ত করার কাজ – “প্রজেক্ট গ্নু (GNU)”। সেই ব্যক্তিগত পাগলামো মার্কা উদ্যোগটাই আজ পৌঁছে গেছে সামগ্রিক ”সফটওয়্যার মুক্তি”র আন্দোলনে। প্রতিষ্ঠা পেয়েছে ”মুক্ত সফটওয়্যার ফাউন্ডেশন” (Free Software Foundation বা FSF)। বিশ্বের বাঘা বাঘা সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান যোগ দিয়েছে এই সংগঠনের সহযোগী হিসেবে। উদাহরন স্বরূপ বলা যায় – ইএফএফ, ডিএফএফ, ক্যানোনিক্যাল, আইবিএম, গুগল, লিনাক্স ফাউন্ডেশনের নাম। ২০০৪ সাল থেকে এই আন্দোলনের শুরুর দিনটি উদযাপন করা হচ্ছে সেপ্টেম্বর মাসের তৃতীয় শনিবারে।

Read More

“হার্ডওয়্যার মুক্তি দিবস – ২০১৬” — বাংলাদেশ আয়োজন

মুক্ত হার্ডওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য যে কোন প্রযুক্তি ব্যবহারকারীর নিজ পছন্দ অনুযায়ী যে কোন হার্ডওয়্যার ক্রয় ও ব্যবহারের অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত হার্ডওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত হার্ডওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে থাকে। এই আন্দোলনকে ত্বরান্বিত করতে বিগত ২০১৩ইং সাল থেকে বছরের প্রথম মাস জানুয়ারীর তৃতীয় শনিবারে “হার্ডওয়্যার মুক্তি দিবস” উদযাপনের পরিকল্পনা করা হয়ে আসছে। এ বছরে এই দিনটি বাংলাদেশে পালিত হয় ২৭শে মে, ২০১৬ইং।

Read More

“হার্ডওয়্যার মুক্তি দিবস – ২০১৬” — বাংলাদেশ আয়োজন

মুক্ত হার্ডওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য যে কোন প্রযুক্তি ব্যবহারকারীর নিজ পছন্দ অনুযায়ী যে কোন হার্ডওয়্যার ক্রয় ও ব্যবহারের অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত হার্ডওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত হার্ডওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে থাকে। এই আন্দোলনকে ত্বরান্বিত করতে বিগত ২০১৩ইং সাল থেকে বছরের প্রথম মাস জানুয়ারীর তৃতীয় শনিবারে “হার্ডওয়্যার মুক্তি দিবস” উদযাপনের পরিকল্পনা করা হয়ে আসছে। এ বছরে এই দিনটি বাংলাদেশে পালিত হতে যাচ্ছে ২৭শে মে, ২০১৬ইং।

এফওএসএস বাংলাদেশ এ বছর দেশের সকল উন্মুক্ত প্রযুক্তিপ্রেমীকে সাথে নিয়ে পালন করতে যাচ্ছে “হার্ডওয়্যার মুক্তি দিবস – ২০১৬” বাংলাদেশ আয়োজন।

আয়োজনের বিস্তারিত:
বিকাল ১৭:৩০ – বিকাল ১৮:০০ — মুক্ত হার্ডওয়্যার ব্যবহারে বাস্তব প্রকল্প উপস্থাপন/প্রদর্শণী (টিম নাটবল্টু)
দুপুর ১৮:০০ – বিকাল ১৮:৩০ — সরাসরি মতবিনিময় ও প্রশ্নোত্তর।

আয়োজন সমন্বয়কারী:
সগীর হোসাইন খান +৮৮০১৯১৩৪৭৫৯৪৬

“উন্মুক্ত শিক্ষা দিবস – ২০১৬” — বাংলাদেশ আয়োজন

“উন্মুক্ত শিক্ষা দিবস” আয়োজনটি একটি বৈশ্বিক আয়োজন। মানে পুরো পৃথিবীর বিভিন্ন অবস্থানে বিভিন্ন সামাজিক ও শিক্ষা ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন এই আয়োজনে অংশ নেবে এবং সক্রিয়ভাবে উদযাপন করবে দিবসটিকে। উন্মুক্ত শিক্ষা আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য প্রযুক্তির ব্যবহারে “শিক্ষা” নামক মৌলিক অধিকারটুকু সবার জন্য সুনিশ্চিত করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে উন্মুক্ত শিক্ষা আন্দোলন উন্মুক্ত সফটওয়্যার, উন্মুক্ত পাঠ্যবই, উন্মুক্ত শিক্ষা উপকরন তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে থাকে।

শিক্ষায় ব্যবহৃত সফটওয়্যার এবং মুক্ত সফটওয়্যার সমূহের ব্যবহারে শিক্ষায় অগ্রগতি, উন্মুক্ত শিক্ষা উপকরণ এবং চলমান প্রকল্পসমূহকে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মাঝে উপস্থাপন করতেই এই আয়োজনটি করা হয়। ২০১৩ইং সালে এই উদযাপনের পরিকল্পনা করে ডিজিটাল ফ্রিডম ফাউন্ডেশন এবং ২০১৪ইং সালে প্রথমবারের মতো এই আয়োজনটি বিশ্বব্যাপী আয়োজিত হয়েছিলো।

যেহেতু সফটওয়্যার মুক্তি দিবস আয়োজনটি এবং এই আয়োজনটি একই সংগঠনের পক্ষ থেকে পরিকল্পিত তাই সফটওয়্যার মুক্তি দিবসের ন্যায় মাসের তৃতীয় শনিবার প্রথা মেনে ২০১৬ইং সালের জানুয়ারী মাসের তৃতীয় শনিবারে মানে আগামী ১৬ই জানুয়ারী “উন্মুক্ত শিক্ষা দিবস” উদযাপন করার পরিকল্পনা করা হয়েছে।

আমরা এফওএসএস বাংলাদেশ, বিশ্বের অন্যান্য সকলের সাথে তাল মিলিয়ে এই দিনটিতে “উন্মুক্ত শিক্ষা দিবস – ২০১৬” — বাংলাদেশ আয়োজন উদযাপন করতে যাচ্ছি। এই দিনে আমরা বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার ধানমন্ডিতে অবস্থিত একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র এবি বিল্ডিং (ডিটি-৪) লাউঞ্জে আয়োজনটি করবো।

আমাদের এই আয়োজনের মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীরা বিশ্বব্যাপী চলমান বিভিন্ন উন্মুক্ত শিক্ষা প্রকল্প, সফটওয়্যার, টুলস, বই ইত্যাদি সম্পর্কে জানতে পারবেন। বিকাল ৪টা ৩০মিনিট থেকে শুরু করে সন্ধ্যে ৬টা ৩০মিনিট ব্যাপী এই আয়োজনে আপনাদের সবাইকে বন্ধু-স্বজন-আপনজন সহকারে আমন্ত্রন জানাচ্ছি। জিএনইউ/লিনাক্স বিষয়ক ব্যবহারিক সাপোর্ট/সহায়তা সেবাটুকু নিশ্চিত করতে আগাম তথ্য দিয়ে আমাদেরকে আয়োজনে সহায়তা করুন — http://goo.gl/m75zy লিংকটি থেকে।

“সফটওয়্যার মুক্তি দিবস – ২০১৫” — বাংলাদেশ আয়োজন

মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য কম্পিউটার ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত সফটওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে। ১৯৮৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসের কোন একদিনে রিচার্ড স্টলম্যান নামের সফটওয়্যারের যাদুকর এক বদ্ধ উন্মাদ নিজের মোটা মাইনের চাকুরী ছেড়ে দিয়ে শুরু করেছিলেন মানবতার জন্য সফটওয়্যার উন্মুক্ত করার কাজ – “প্রজেক্ট গ্নু (GNU)”। সেই ব্যক্তিগত পাগলামো মার্কা উদ্যোগটাই আজ পৌঁছে গেছে সামগ্রিক ”সফটওয়্যার মুক্তি”র আন্দোলনে। প্রতিষ্ঠা পেয়েছে ”মুক্ত সফটওয়্যার ফাউন্ডেশন” (Free Software Foundation বা FSF)। বিশ্বের বাঘা বাঘা সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান যোগ দিয়েছে এই সংগঠনের সহযোগী হিসেবে। উদাহরন স্বরূপ বলা যায় – ক্যানোনিক্যাল, গুগল, লিনাক্স ফাউন্ডেশনের নাম। ২০০৪ সাল থেকে এই আন্দোলনের শুরুর দিনটি উদযাপন করা হচ্ছে সেপ্টেম্বর মাসের তৃতীয় শনিবারে।

Read More

“উন্মুক্ত শিক্ষা দিবস – ২০১৫” — বাংলাদেশ আয়োজন

“উন্মুক্ত শিক্ষা দিবস” আয়োজনটি একটি বৈশ্বিক আয়োজন। মানে পুরো পৃথিবীর বিভিন্ন অবস্থানে বিভিন্ন সামাজিক ও শিক্ষা ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন এই আয়োজনে অংশ নেবে এবং সক্রিয়ভাবে উদযাপন করবে দিবসটিকে। উন্মুক্ত শিক্ষা আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য প্রযুক্তির ব্যবহারে “শিক্ষা” নামক মৌলিক অধিকারটুকু সবার জন্য সুনিশ্চিত করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে উন্মুক্ত শিক্ষা আন্দোলন উন্মুক্ত সফটওয়্যার, উন্মুক্ত পাঠ্যবই, উন্মুক্ত শিক্ষা উপকরন তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে থাকে।

Read More

“উন্মুক্ত শিক্ষা দিবস – ২০১৪” — বাংলাদেশ আয়োজন

“উন্মুক্ত শিক্ষা দিবস” আয়োজনটি একটি বৈশ্বিক আয়োজন। মানে পুরো পৃথিবীর বিভিন্ন অবস্থানে বিভিন্ন সামাজিক ও শিক্ষা ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন এই আয়োজনে অংশ নেবে এবং সক্রিয়ভাবে উদযাপন করবে দিবসটিকে। উন্মুক্ত শিক্ষা আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য প্রযুক্তির ব্যবহারে “শিক্ষা” নামক মৌলিক অধিকারটুকু সবার জন্য সুনিশ্চিত করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে উন্মুক্ত শিক্ষা আন্দোলন উন্মুক্ত সফটওয়্যার, উন্মুক্ত পাঠ্যবই, উন্মুক্ত শিক্ষা উপকরন তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে থাকে।

Read More

“সফটওয়্যার মুক্তি দিবস – ২০১৪” — বাংলাদেশ আয়োজন

মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য কম্পিউটার ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত সফটওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে। ১৯৮৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসের কোন একদিনে রিচার্ড স্টলম্যান নামের সফটওয়্যারের যাদুকর এক বদ্ধ উন্মাদ নিজের মোটা মাইনের চাকুরী ছেড়ে দিয়ে শুরু করেছিলেন মানবতার জন্য সফটওয়্যার উন্মুক্ত করার কাজ – “প্রজেক্ট গ্নু (GNU)”। সেই ব্যক্তিগত পাগলামো মার্কা উদ্যোগটাই আজ পৌঁছে গেছে সামগ্রিক ”সফটওয়্যার মুক্তি”র আন্দোলনে। প্রতিষ্ঠা পেয়েছে ”মুক্ত সফটওয়্যার ফাউন্ডেশন” (Free Software Foundation বা FSF)। বিশ্বের বাঘা বাঘা সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান যোগ দিয়েছে এই সংগঠনের সহযোগী হিসেবে। উদাহরন স্বরূপ বলা যায় – ক্যানোনিক্যাল, গুগল, লিনাক্স ফাউন্ডেশনের নাম। ২০০৪ সাল থেকে এই আন্দোলনের শুরুর দিনটি উদযাপন করা হচ্ছে সেপ্টেম্বর মাসের তৃতীয় শনিবারে।

Read More

“হার্ডওয়্যার মুক্তি দিবস – ২০১৪” — বাংলাদেশ আয়োজন

মুক্ত হার্ডওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য যে কোন প্রযুক্তি ব্যবহারকারীর নিজ পছন্দ অনুযায়ী যে কোন হার্ডওয়্যার ক্রয় ও ব্যবহারের অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত হার্ডওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত হার্ডওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে থাকে। বাংলাদেশেও এই আন্দোলনের বিস্তৃতি ও সুফলকে ত্বরান্বিত ও অর্থবহ করতে মার্চ মাসের তৃতীয় শনিবার, ১৫ই মার্চ “হার্ডওয়্যার মুক্তি দিবস” উদযাপনের পরিকল্পনা করা হয়েছে।

Read More