প্রযুক্তিভিত্তিক সেবা এবং পন্য প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলো কর্তৃক সাধারন ব্যবহারকারীদের নিকট তথ্য প্রদান না করা এবং তথ্য/প্রযুক্তি প্রাপ্তি/ব্যবহারের ক্ষেত্রে সরাসরি/বিকল্প পন্থায় বাধাসৃষ্টিকারী প্রযুক্তি/ব্যবস্থাগুলোকে আমজনতার সামনে উপস্থাপন করতেই এই দিনটি পালন করা হয়। প্রযুক্তির দুনিয়ায় প্রযুক্তি ব্যবহারকারীদের অধিকার খর্ব করে এমন সব প্রযুক্তিকে প্রতিহত করতে বিগত ২০১২ইং সাল থেকে প্রতি বছর ডিআরএম বা “ডিজিটাল রেস্ট্রিকশনস ম্যানেজমেন্ট” প্রতিরোধে মে মাসের প্রথম সপ্তাহের একটি দিন আন্তর্জাতিক দিবস হিসেবে সারা বিশ্বে পালিত হচ্ছে।

বিগত বছরগুলোয় আমরা এইচটিএমএল ৫ বা ওয়েব দুনিয়ার দখলদারীর উদ্দেশ্যে ইএমই বা এনক্রিপটেড মিডিয়া এক্সটেনশনস এবং ডিআরএম বা “ডিজিটাল রেস্ট্রিকশনস ম্যানেজমেন্ট” এর পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন রুখে দিতে, SOPA এবং PIPA প্রতিরোধে এই দিনটি পালন করেছিলাম। আমাদের সেই বৈশ্বিক/সামগ্রিক আন্দোলনের কার্যকারীতা সকল তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারকারী ইতোমধ্যেই দেখতে পাচ্ছেন এবং সেই প্রতিরোধের সুফলটাও ভোগ করছেন।

আমরা এফওএসএস বাংলাদেশ, কুষ্টিয়াস্থ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের সার্বিক সহযোগীতায়, পুরো বিশ্বের উন্মুক্ত মনা মানুষ ও প্রযুক্তিব্যবহারকারীদের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আসন্ন ১লা অক্টোবর ২০১৯ইং মঙ্গলবার, সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা অবদি একটি জনসচেতনতামূলক আলোচনা সভা এবং মিনিট কুড়ি ব্যাপী একটি মানববন্ধন কর্মসূচী পালনের পরিকল্পনা করেছি।

আশা রাখি আপনাদেরকে সহ দেশের সকল মুক্তমনা মানুষ এবং প্রযুক্তি ব্যবহারকারীদেরকে এই দিনে আমাদের সাথেই পাবো। আমাদের সাথে সরাসরি এই মানববন্ধনে অংশ নিন এবং প্রযুক্তির দুনিয়ায় এই দুষ্ট ডিআরএম প্রযুক্তির প্রতিরোধে নিজের দৃঢ় অবস্থান আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে জানিয়ে দিন। ডিআরএম বা “ডিজিটাল রেস্ট্রিকশনস ম্যানেজমেন্ট” বিষয়ে আরো বিস্তারিত জানতে দেখুন — http://www.defectivebydesign.org/what_is_drm