“সফটওয়্যার মুক্তি দিবস – ২০১৯” — বাংলাদেশ আয়োজন

“সফটওয়্যার মুক্তি দিবস – ২০১৯” — বাংলাদেশ আয়োজন

sfd-2019

মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য কম্পিউটার ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত সফটওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে। ১৯৮৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসের কোন একদিনে রিচার্ড স্টলম্যান নামের সফটওয়্যারের যাদুকর এক বদ্ধ উন্মাদ নিজের মোটা মাইনের চাকুরী ছেড়ে দিয়ে শুরু করেছিলেন মানবতার জন্য সফটওয়্যার উন্মুক্ত করার কাজ – “প্রজেক্ট গ্নু (GNU)”। সেই ব্যক্তিগত পাগলামো মার্কা উদ্যোগটাই আজ পৌঁছে গেছে সামগ্রিক ”সফটওয়্যার মুক্তি”র আন্দোলনে। প্রতিষ্ঠা পেয়েছে ”মুক্ত সফটওয়্যার ফাউন্ডেশন” (Free Software Foundation বা FSF)। বিশ্বের বাঘা বাঘা সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান যোগ দিয়েছে এই সংগঠনের সহযোগী হিসেবে। উদাহরন স্বরূপ বলা যায় – ইএফএফ, ডিএফএফ, ক্যানোনিক্যাল, আইবিএম, গুগল, লিনাক্স ফাউন্ডেশনের নাম। ২০০৪ সাল থেকে এই আন্দোলনের শুরুর দিনটি উদযাপন করা হচ্ছে সেপ্টেম্বর মাসের তৃতীয় শনিবারে।

Read More

উবুন্টু ১৯.০৪ “ডিস্কো ডিংগো” এর প্রকাশনা উদযাপন

Banner of Ubuntu 19.04 (Disco Dingo) Release Party

Banner of Ubuntu 19.04 (Disco Dingo) Release Party

এই প্রথম একটি ডিস্ট্রোর প্রকাশনা উদযাপন করা হলো ইফতার আয়োজনের মাধ্যমে। উবুন্টুর নতুন সংস্করন ১৯.০৪(ডিস্কো ডিংগো) এর প্রকাশনা উদযাপন আয়োজনটি আয়োজিত হলো গত ১৮ মে ২০১৯ইং, রোজ শনিবার।

Read More

“পেঙ্গুইন মেলা – ২০১৬” – ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য কম্পিউটার ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত সফটওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে। “সফটওয়্যার চোর” অপবাদ থেকে নিজের প্রানের প্রিয় এই বাংলাদেশকে কালিমামুক্ত করতে এবং সফটওয়্যার প্রযুক্তিতে স্বনির্ভর ও মুক্তপ্রযুক্তি নির্ভর বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার, লিনাক্স ও উন্মুক্ত সোর্স ভিত্তিক সফটওয়্যারকে ছড়িয়ে দেবার প্রত্যয়ে মুক্ত প্রযুক্তি ভিত্তিক সফটওয়্যার, লিনাক্স এবং বিভিন্ন সেবাসমূহ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে এফওএসএস বাংলাদেশ (ফাউন্ডেশন ফর ওপেন সোর্স সলিউশনস বাংলাদেশ)।

উন্মুক্ত প্রযুক্তি ও মুক্ত সফটওয়্যার বিষয়ে এফওএসএস বাংলাদেশ এর জনসচেতনতামূলক একটি আয়োজন “পেঙ্গুইন মেলা”। এফওএসএস বাংলাদেশ এবং ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র ইলেক্ট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সম্মিলিত উদ্যোগে “পেঙ্গুইন মেলা” অনুষ্ঠিত হয় ৪ঠা জুন ২০১৬ইং বৃহস্পতিবার, সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা অবদি, ঢাকার ৬৬ গ্রীন রোডে অবস্থিত ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র ডঃ এম আই পাটোয়ারী মিলনায়তনে।

এই আয়োজনে ছিল —
# সফটওয়্যার ও সফটওয়্যার পাইরেসি বিষয়ক আলোচনা
# সফটওয়্যার পাইরেসি থেকে মুক্ত হবার উপায় নিয়ে বিশদ আলোচনা
# মুক্ত সফটওয়্যার, ওপেনসোর্স ও জিএনইউ-লিনাক্স বিষয়ে আলোচনা
# অংশগ্রহনকারী দর্শকদের সাথে মতামত বিনিময় ও সরাসরি আলোচনা।
# আয়োজনের শেষাংশে জিএনউউ/লিনাক্স ডিস্ট্রো ইন্সটলেশন এবং ব্যবহার সহযোগীতার ব্যবস্থা। যেখানে জিএনইউ-লিনাক্স ভিত্তিক বিভিন্ন ডিস্ট্রোর আইএসও পেনড্রাইভে সংগ্রহ ও ইন্সটল করে নেয়া যাবে।

আয়োজনের কিছু ছবির সংকলন।

“পেঙ্গুইন মেলা – ২০১৬” – ইনডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ

মুক্ত প্রযুক্তি আন্দোলনটি একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য প্রযুক্তি ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত প্রযুক্তি আন্দোলন, মুক্ত সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে। “সফটওয়্যার চোর” অপবাদের থেকে নিজের প্রানের প্রিয় এই বাংলাদেশকে কালিমামুক্ত করতে এবং প্রযুক্তিতে স্বনির্ভর ও মুক্তপ্রযুক্তি নির্ভর বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার, লিনাক্স ও উন্মুক্ত সোর্স ভিত্তিক সফটওয়্যারকে ছড়িয়ে দেবার প্রত্যয়ে মুক্ত প্রযুক্তি ভিত্তিক সফটওয়্যার, লিনাক্স এবং বিভিন্ন সেবাসমূহ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে এফওএসএস বাংলাদেশ (ফাউন্ডেশন ফর ওপেন সোর্স সলিউশনস বাংলাদেশ)।

উন্মুক্ত প্রযুক্তি ও মুক্ত সফটওয়্যার বিষয়ে এফওএসএস বাংলাদেশ এর জনসচেতনতামূলক একটি আয়োজন “পেঙ্গুইন মেলা”। ইনডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ এর কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগ এবং এফওএসএস বাংলাদেশ এর যৌথ উদ্যোগে  “পেঙ্গুইন মেলা” অনুষ্ঠিত হয় ২ জুন ২০১৬ ইং বৃহস্পতিবার, সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা অবদি ঢাকার বসুন্ধরা আবাসিকে অবস্থিত ইনডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ ক্যাম্পাসের জিপিএল মিলনায়তনে।

এই আয়োজনে ছিল —
# সফটওয়্যার ও সফটওয়্যার পাইরেসি বিষয়ক আলোচনা
# সফটওয়্যার পাইরেসি থেকে মুক্ত হবার উপায় নিয়ে বিশদ আলোচনা
# মুক্ত সফটওয়্যার, ওপেনসোর্স ও জিএনইউ-লিনাক্স বিষয়ে আলোচনা
# অংশগ্রহনকারী দর্শকদের সাথে মতামত বিনিময় ও সরাসরি আলোচনা।
# আয়োজনের শেষাংশে জিএনউউ/লিনাক্স ডিস্ট্রো ইন্সটলেশন এবং ব্যবহার সহযোগীতার ব্যবস্থা। যেখানে জিএনইউ-লিনাক্স ভিত্তিক বিভিন্ন ডিস্ট্রোর আইএসও পেনড্রাইভে সংগ্রহ ও ইন্সটল করে নেয়া যাবে।

আয়োজনের কিছু ছবির সংকলন।

এফওএসএস বাংলাদেশ এর পঞ্চম বর্ষপূর্তি উদযাপন

প্রিয় সবাই
আজ ২২শে ফেব্রুয়ারী ২০১৬ইং আমাদের সবার সংগঠন, এফওএসএস বাংলাদেশ পূর্ণ করেছে তাঁর পঞ্চম বর্ষের কার্যক্রম এবং ষষ্ঠ বর্ষে এর যাত্রার শুরু হয়েছে। সাংগঠনিকভাবে ২১শে ফেব্রুয়ারী ২০১৬ইং আমরা এই ১৮২৬তম দিনটা পার করছি এবং আপনাদের সবাইকে, একসাথে এই কার্যক্রম-আন্দোলনের সাথী পেয়ে অত্যন্ত গর্বিত বোধ করছি।

১৮৩২তম দিন পূর্ণ করার দিনটিতে মানে ২৬শে ফেব্রুয়ারী ২০১৬ইং, শুক্রবার আমরা সকল স্বেচ্ছাসেবকের সাথে সংযুক্ত হতে চাই, সাক্ষাৎ করতে চাই, হৃাদিক সম্পর্কের বাঁধনটা আরো দৃঢ় করতে চাই। সেই লক্ষ্যে এই দিনটিকে আমরা সাংগঠনিকভাবে বর্ষপূর্তির দিন হিসেবে উদযাপন করতে চাই আপনাদের সবার সাথে। ১৮২৬তম দিন পূর্ণ করার দিনটিতে মানে ২১শে ফেব্রুয়ারী ২০১৬ইং, রবিবার আমরা বেশ কিছু স্বেচ্ছাসেবী একত্রিত হয়েছিলাম এবং সবার কিঞ্চিৎ আনন্দ আয়োজনের ছবি সবার উদ্দেশ্যে এই আয়োজন পৃষ্ঠায় সংযুক্ত হলো।

এই বিশেষ দিনটিতে বিকাল ৪টা থেকে বিকাল ৬টা ৩০মিনিট ব্যাপী আমাদের আয়োজন পরিকল্পনায় রয়েছে —
১। বর্তমান কার্যনির্বাহী পরিষদের পক্ষ থেকে স্বেচ্ছাসেবকদের সবাইকে স্বাগতম জানানো এবং শুভেচ্ছা বক্তব্য।
২। হালকা বিনোদনমূলক সাংস্কৃতিক আয়োজন এবং আপ্যায়ন।

এই আয়োজন সাংগঠনিক ভাবে আমাদের বর্ষপূর্তির আয়োজন বিধায় আয়োজনটিকে আমরা আনন্দঘন পরিবেশেই করতে আগ্রহী এবং এতে সাংগঠনিক স্বেচ্ছাসেবকবৃন্দ সাদরে অংশ নেবেন। আমাদের এই আয়োজনে নাটবল্টু’র প্রধান কার্যালয়ে আপনাদের সবাইকে আমন্ত্রন জানাচ্ছি। আয়োজনের খুঁটিনাটি পরিকল্পনায় আপনাদের নিজস্ব মতামত এবং আয়োজনে আপনাদের সক্রিয় অংশগ্রহণ একান্ত কাম্য।

“পেঙ্গুইন মেলা – ২০১৫” – সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটি

মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য কম্পিউটার ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত সফটওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে। “সফটওয়্যার চোর” অপবাদ থেকে নিজের প্রানের প্রিয় এই বাংলাদেশকে কালিমামুক্ত করতে এবং সফটওয়্যার প্রযুক্তিতে স্বনির্ভর ও মুক্তপ্রযুক্তি নির্ভর বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার, লিনাক্স ও উন্মুক্ত সোর্স ভিত্তিক সফটওয়্যারকে ছড়িয়ে দেবার প্রত্যয়ে মুক্ত প্রযুক্তি ভিত্তিক সফটওয়্যার, লিনাক্স এবং বিভিন্ন সেবাসমূহ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে এফওএসএস বাংলাদেশ (ফাউন্ডেশন ফর ওপেন সোর্স সলিউশনস বাংলাদেশ)।

উন্মুক্ত প্রযুক্তি ও মুক্ত সফটওয়্যার বিষয়ে এফওএসএস বাংলাদেশ এর জনসচেতনতামূলক একটি আয়োজন “পেঙ্গুইন মেলা”। সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটি’র কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগ এবং এফওএসএস বাংলাদেশ এর যৌথ উদ্যোগে আসন্ন “পেঙ্গুইন মেলা” টি অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল, ৯ই ডিসেম্বর ২০১৫ইং, বুধবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা অবদি ঢাকার বনানীতে অবস্থিত সাউথ ইস্ট ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসের বিবিএ সেমিনার কক্ষে।

এই আয়োজনে থাকছে —
# সফটওয়্যার ও সফটওয়্যার পাইরেসি বিষয়ক আলোচনা
# সফটওয়্যার পাইরেসি থেকে মুক্ত হবার উপায় নিয়ে বিশদ আলোচনা
# মুক্ত সফটওয়্যার, ওপেনসোর্স ও জিএনইউ-লিনাক্স বিষয়ে আলোচনা
# অংশগ্রহনকারী দর্শকদের সাথে মতামত বিনিময় ও সরাসরি আলোচনা।
# আয়োজনের শেষাংশে জিএনউউ/লিনাক্স ডিস্ট্রো ইন্সটলেশন এবং ব্যবহার সহযোগীতার ব্যবস্থা। যেখানে জিএনইউ-লিনাক্স ভিত্তিক বিভিন্ন ডিস্ট্রোর আইএসও পেনড্রাইভে সংগ্রহ ও ইন্সটল করে নেয়া যাবে।

 

আয়োজন পরবর্তী সংবাদ প্রতিবেদন (১০ই ডিসেম্বর ২০১৫ইং)

আয়োজনের ছবির সংকলন।

“সফটওয়্যার মুক্তি দিবস – ২০১৫” — বাংলাদেশ আয়োজন

মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য কম্পিউটার ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত সফটওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে। ১৯৮৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসের কোন একদিনে রিচার্ড স্টলম্যান নামের সফটওয়্যারের যাদুকর এক বদ্ধ উন্মাদ নিজের মোটা মাইনের চাকুরী ছেড়ে দিয়ে শুরু করেছিলেন মানবতার জন্য সফটওয়্যার উন্মুক্ত করার কাজ – “প্রজেক্ট গ্নু (GNU)”। সেই ব্যক্তিগত পাগলামো মার্কা উদ্যোগটাই আজ পৌঁছে গেছে সামগ্রিক ”সফটওয়্যার মুক্তি”র আন্দোলনে। প্রতিষ্ঠা পেয়েছে ”মুক্ত সফটওয়্যার ফাউন্ডেশন” (Free Software Foundation বা FSF)। বিশ্বের বাঘা বাঘা সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান যোগ দিয়েছে এই সংগঠনের সহযোগী হিসেবে। উদাহরন স্বরূপ বলা যায় – ক্যানোনিক্যাল, গুগল, লিনাক্স ফাউন্ডেশনের নাম। ২০০৪ সাল থেকে এই আন্দোলনের শুরুর দিনটি উদযাপন করা হচ্ছে সেপ্টেম্বর মাসের তৃতীয় শনিবারে।

Read More

“পেঙ্গুইন মেলা – ২০১৫” – হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য কম্পিউটার ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত সফটওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে। “সফটওয়্যার চোর” অপবাদ থেকে নিজের প্রানের প্রিয় এই বাংলাদেশকে কালিমামুক্ত করতে এবং সফটওয়্যার প্রযুক্তিতে স্বনির্ভর ও মুক্তপ্রযুক্তি নির্ভর বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার, লিনাক্স ও উন্মুক্ত সোর্স ভিত্তিক সফটওয়্যারকে ছড়িয়ে দেবার প্রত্যয়ে মুক্ত প্রযুক্তি ভিত্তিক সফটওয়্যার, লিনাক্স এবং বিভিন্ন সেবাসমূহ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে এফওএসএস বাংলাদেশ (ফাউন্ডেশন ফর ওপেন সোর্স সলিউশনস বাংলাদেশ)।

উন্মুক্ত প্রযুক্তি ও মুক্ত সফটওয়্যার বিষয়ে এফওএসএস বাংলাদেশ এর জনসচেতনতামূলক একটি আয়োজন “পেঙ্গুইন মেলা”। এফওএসএস বাংলাদেশ এবং হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এর কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগের সম্মিলিত উদ্যোগে আসন্ন “পেঙ্গুইন মেলা” টি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৮ই আগষ্ট ২০১৫ইং, মঙ্গলবার দুপুর ২টা থেকে বিকাল ৫টা অবদি বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের জেলা দিনাজপুরের দশমাইলে অবস্থিত হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মিলনায়তনে।

এই আয়োজনে থাকছে —
# সফটওয়্যার ও সফটওয়্যার পাইরেসি বিষয়ক আলোচনা
# সফটওয়্যার পাইরেসি থেকে মুক্ত হবার উপায় নিয়ে বিশদ আলোচনা
# মুক্ত সফটওয়্যার, ওপেনসোর্স ও জিএনইউ-লিনাক্স বিষয়ে আলোচনা
# অংশগ্রহনকারী দর্শকদের সাথে মতামত বিনিময় ও সরাসরি আলোচনা।
# আয়োজনের শেষাংশে জিএনউউ/লিনাক্স ডিস্ট্রো ইন্সটলেশন এবং ব্যবহার সহযোগীতার ব্যবস্থা। যেখানে জিএনইউ-লিনাক্স ভিত্তিক বিভিন্ন ডিস্ট্রোর আইএসও পেনড্রাইভে সংগ্রহ ও ইন্সটল করে নেয়া যাবে।

 

আয়োজন পরবর্তী সংবাদ প্রতিবেদন (২০শে আগষ্ট ২০১৫ইং)
কম্পিউটার ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করার সামাজিক আন্দোলন মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন মুক্ত সফটওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে থাকে। “সফটওয়্যার চোর” অপবাদ থেকে নিজের প্রানের প্রিয় এই বাংলাদেশকে কালিমামুক্ত করতে এবং সফটওয়্যার প্রযুক্তিতে স্বনির্ভর ও মুক্তপ্রযুক্তি নির্ভর বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগ এবং এফওএসএস বাংলাদেশ এর যৌথ উদ্যোগে বিগত ১৮ই আগষ্ট ২০১৫ইং, মঙ্গলবার বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যে ৬টা অবদি হাবিপ্রবি’র মিলনায়তনে উন্মুক্ত প্রযুক্তি ও মুক্ত সফটওয়্যার বিষয়ের উন্মুক্ত আয়োজন “পেঙ্গুইন মেলা” অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আয়োজনের উদ্বোধন ঘোষনা এবং স্বাগত বক্তব্য রাখেন হাবিপ্রবি’র কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগের প্রধান সহকারী অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন। প্রায় আড়াই শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিতির এই আয়োজনে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন এফওএসএস বাংলাদেশ এর মহাসচিব সাজেদুর রহিম জোয়ারদার। সফটওয়্যার পাইরেসি থেকে মুক্ত হবার উপায়, মুক্ত সফটওয়্যার, ওপেনসোর্স ও জিএনইউ-লিনাক্স, মুক্ত সফটওয়্যারেই পেশাজীবনের উন্নতি করা সহ নানান বিষয়ে আয়োজনে অংশগ্রহনকারীরা স্পষ্ট করে জানতে-বুঝতে সুযোগ পেয়েছেন। আয়োজনের শেষাংশে মুক্ত সফটওয়্যারের ব্যবহারিক অভিজ্ঞতা উপস্থিতির সামনে তুলে ধরেন হাবিপ্রবি’র প্রাক্তন শিক্ষার্থী, এফওএসএস বাংলাদেশ এর স্বেচ্ছাসেবক এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র শিক্ষক শাহ মোহাম্মদ তানভীর সিদ্দীকি এবং ট্রান্সকম গ্রুপের নেটওয়ার্ক বিভাগে কর্মরত, হাবিপ্রবি’র প্রাক্তন শিক্ষার্থী ফেরদৌস তাপস। এরপরপরই জিএনউউ/লিনাক্স ডিস্ট্রো ইন্সটলেশন এবং ব্যবহার বিষয়ে উপস্থাপনা দেন এফওএসএস বাংলাদেশ এর স্বেচ্ছাসেবক সফিকুর রহমান পল্লব। আয়োজনে আরো বক্তব্য রেখেছেন আশরাফুল ইসলাম লিটন, রায়হান ইসলাম, ফারহাদ হোসেন মোক্তার সহ আরো অনেকে।

আয়োজনের ছবির সংকলন।

“পেঙ্গুইন মেলা – ২০১৫” – ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য কম্পিউটার ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করা। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত সফটওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে। “সফটওয়্যার চোর” অপবাদ থেকে নিজের প্রানের প্রিয় এই বাংলাদেশকে কালিমামুক্ত করতে এবং সফটওয়্যার প্রযুক্তিতে স্বনির্ভর ও মুক্তপ্রযুক্তি নির্ভর বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার, লিনাক্স ও উন্মুক্ত সোর্স ভিত্তিক সফটওয়্যারকে ছড়িয়ে দেবার প্রত্যয়ে মুক্ত প্রযুক্তি ভিত্তিক সফটওয়্যার, লিনাক্স এবং বিভিন্ন সেবাসমূহ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে এফওএসএস বাংলাদেশ (ফাউন্ডেশন ফর ওপেন সোর্স সলিউশনস বাংলাদেশ)।

উন্মুক্ত প্রযুক্তি ও মুক্ত সফটওয়্যার বিষয়ে এফওএসএস বাংলাদেশ এর জনসচেতনতামূলক একটি আয়োজন “পেঙ্গুইন মেলা”। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র সফটওয়্যার প্রকৌশল বিভাগ এবং এফওএসএস বাংলাদেশ এর যৌথ উদ্যোগে আসন্ন “পেঙ্গুইন মেলা” টি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৬ই আগষ্ট ২০১৫ইং, বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যে ৬টা অবদি ঢাকার ধানমন্ডিস্থ প্রিন্স প্লাজার চতুর্থ তলায়, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র মিলনায়তনে।

এই আয়োজনে থাকছে —
# সফটওয়্যার ও সফটওয়্যার পাইরেসি বিষয়ক আলোচনা
# সফটওয়্যার পাইরেসি থেকে মুক্ত হবার উপায় নিয়ে বিশদ আলোচনা
# মুক্ত সফটওয়্যার, ওপেনসোর্স ও জিএনইউ-লিনাক্স বিষয়ে আলোচনা
# অংশগ্রহনকারী দর্শকদের সাথে মতামত বিনিময় ও সরাসরি আলোচনা।
# আয়োজনের শেষাংশে জিএনউউ/লিনাক্স ডিস্ট্রো ইন্সটলেশন এবং ব্যবহার সহযোগীতার ব্যবস্থা। যেখানে জিএনইউ-লিনাক্স ভিত্তিক বিভিন্ন ডিস্ট্রোর আইএসও পেনড্রাইভে সংগ্রহ ও ইন্সটল করে নেয়া যাবে।

আয়োজনে পরবর্তী সংবাদ প্রতিবেদন

কম্পিউটার ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করার সামাজিক আন্দোলন মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন মুক্ত সফটওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে থাকে। “সফটওয়্যার চোর” অপবাদ থেকে নিজের প্রানের প্রিয় এই বাংলাদেশকে কালিমামুক্ত করতে এবং সফটওয়্যার প্রযুক্তিতে স্বনির্ভর ও মুক্তপ্রযুক্তি নির্ভর বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র সফটওয়্যার প্রকৌশল বিভাগ এবং এফওএসএস বাংলাদেশ এর যৌথ উদ্যোগে বিগত ৬ই আগষ্ট ২০১৫ইং, বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যে ৬টা অবদি ঢাকার ধানমন্ডি, সোবাহানবাগস্থ ড্যাফোডিল টাওয়ার-৫ (প্রিন্স প্লাজা)’র চতুর্থ তলায়, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র মিলনায়তনে উন্মুক্ত প্রযুক্তি ও মুক্ত সফটওয়্যার বিষয়ের উন্মুক্ত আয়োজন “পেঙ্গুইন মেলা” অনুষ্ঠিত হয়েছে ।

আয়োজনের উদ্বোধন ঘোষনা এবং স্বাগত বক্তব্য রাখেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র সফটওয়্যার প্রকৌশল বিভাগের প্রধান ডঃ তৌহিদ ভূঁইয়া। আরো বক্তব্য রাখেন একই বিভাগের সিনিয়র লেকচারার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। আয়োজনে আরো উপস্থিত ছিলেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র সিনিয়র অ্যাসিসটেন্ট ডিরেক্টর খালেদ সোহেল। প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী ও উপস্থিতির এই আয়োজনে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন এফওএসএস বাংলাদেশ এর মহাসচিব এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র সফটওয়্যার প্রকৌশল বিভাগের অ্যাডজান্ক্ট ফ্যাকাল্টি সাজেদুর রহিম জোয়ারদার। সফটওয়্যার পাইরেসি থেকে মুক্ত হবার উপায়, মুক্ত সফটওয়্যার, ওপেনসোর্স ও জিএনইউ-লিনাক্স, মুক্ত সফটওয়্যারেই পেশাজীবনের উন্নতি করা সহ নানান বিষয়ে আয়োজনে অংশগ্রহনকারীরা স্পষ্ট করে জানতে-বুঝতে সুযোগ পেয়েছেন। আলোচনার পরপরই অংশগ্রহনকারী দর্শকেরা মতামত বিনিময় ও সরাসরি আলোচনা পর্বে অংশ নেন। আয়োজনের শেষে প্রায় ঘন্টাকালীন বিনামূল্যে জিএনউউ/লিনাক্স ডিস্ট্রো ইন্সটলেশন এবং ব্যবহার সহযোগীতা দেন এফওএসএস বাংলাদেশ এর স্বেচ্ছাসেবক সগীর হোসাইন খান, সফিকুর রহমান পল্লব, হাবীবুর রহমান স্বাধীন, শফিকুল আমিন, মাহাজুরুল করিম মাহা, দেবাশীষ কুমার সিংহ, ফজলে রাব্বী, সোহানুর রহিম জোয়ারদার এবং রিপন হোসেন জুয়েল। এই সেবায় দর্শক/আগ্রহীরা নিজ ল্যাপটপে পছন্দের মুক্ত সফটওয়্যার ডিস্ট্রোটি ইন্সটল করিয়ে নিয়েছেন এবং বিভিন্ন ডিস্ট্রোর আইএসও পেনড্রাইভে সংগ্রহ করেছেন।

আয়োজনের ছবির সংকলন।

ডেবিয়ান ৮ ‘জেসসি’ এর প্রকাশণা উদযাপন

প্রতি ২ বছর পরপর এপ্রিল মাসের শেষ সপ্তাহে বর্তমান প্রযুক্তি বিশ্বের সবচাইতে জনপ্রিয় সার্ভার ওএস এবং স্টেবল-নিরাপদ-ঝামেলামুক্ত ডিস্ট্রো “ডেবিয়ান” প্রকাশিত হয়। উবুন্টু, লিনাক্স মিন্ট, কালি লিনাক্স সহ বেশ কিছু জনপ্রিয় ডিস্ট্রো এই ডেবিয়ান ডিস্ট্রোর উপর ভিত্তি করেই প্রস্তুতকৃত। এই জিএনইউ/লিনাক্স ডিস্ট্রোটি বর্তমানে সার্ভার জগতে সর্বোচ্চ জনপ্রিয়তা পেয়ে সারা বিশ্বের জিএনইউ/লিনাক্স ডিস্ট্রো ব্যবহারকারীদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে রয়েছে। চলতি ২০১৫ইং সালে ডেবিয়ানের ৮ম প্রকাশনাটি হয়েছে এপ্রিল মাসেের শেষাংশে আর এর সাংকেতিক নাম রাখা হয়েছে-”জেসসি”। লক্ষ্যনীয় যে, “ডেবিয়ান” কোন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান কর্তৃক তৈরী করা হয় না, বরংচ এটি তৈরী হয়ে থাকে সারা বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা বিভিন্ন অবদানকারীদের সম্পূর্নই নিজস্ব প্রচেষ্টা আর স্বেচ্ছাশ্রমে।

Read More